নিউটন ও ডারউইনের পাশে সমাহিত হবেন হকিং

0
25
স্টিফেন হকিং—ফাইল ছবি

যুক্তরাজ্যের ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে খ্যাতিমান বিজ্ঞানী আইজ্যাক নিউটন ও চার্লস ডারউইনের পাশে সমাহিত হচ্ছেন তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং।

ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে চার্চ কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার জানিয়েছে, হকিংয়ের দেহভস্ম বিশ্বখ্যাত এই দুই বিজ্ঞানীর পাশে সমাহিত করা হবে। চলতি বছরের শেষ দিকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে থ্যাঙ্কস গিভিং অনুষ্ঠানে চিরবিদায় জানানো হবে এই বিজ্ঞানীকে।

পদার্থ বিজ্ঞানী অধ্যাপক হকিং কয়েক দশক ধরে মোটর নিউরন সিনড্রোমে ভুগছিলেন। গত ১৪ মার্চ ৭৬ বছর বয়সে প্রবাদপ্রতিম বিজ্ঞানী হকিংয়ের জীবনাসান হয়।

বিজ্ঞানী হকিংয়ের পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী ৩১ মার্চ ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রেট সেন্ট ম্যারি চার্চে তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে।

সেন্ট ম্যারি গির্জাটি ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে স্টিফেন হকিং যেখানে অধ্যাপনা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই গনভিল ও কেইয়াস কলেজের খুবই কাছে। তার মৃত্যুর খবর প্রকাশের পর গনভিল ও কেইয়াস কলেজের পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছিল।

ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে সমাহিত করা হবে স্টিফেন হকিংয়ের দেহভস্ম-বিবিসি

শেষকৃত্যের কথা জানাতে গিয়ে কলেজের ওয়েবসাইটে অধ্যাপক হকিংয়ের সন্তান লুসি, রবার্ট ও টিম লিখেছেন, ‘আমাদের বাবা ক্যামব্রিজে ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে বসবাস ও কাজ করেছেন। তিনি এই বিশ্ববিদ্যালয় ও এই শহরের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এ কারণেই আমরা এই শহরে তার শেষকৃত্য আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এই শহরকে তিনি খুব ভালোবাসতেন। এই শহরটিও তাকে খুব ভালোবাসতো। আমাদের বাবার জীবন ও কর্ম অনেকের কাছে অনেক কিছু। তাদের মধ্যে ধর্মবিশ্বাসী যেমন আছেন, তেমনি আছেন অবিশ্বাসীও। সেকারণে শেষকৃত্য অনুষ্ঠানটি হবে সনাতন ও ইনক্লুসিভ।’

ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবের ডিন ড. জন হল বলেছেন, ‘সতীর্থ বিজ্ঞানীদের পাশে স্টিফেন হকিংকে সমাহিত করা খুবই যুৎসই।’

তিনি জানান, স্যার আইজ্যাক নিউটনকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে সমাহিত করা হয়েছিল ১৭২৭ সালে। আর তার পাশে ১৮৮২ সালে সমাহিত করা হয় বিবর্তনবাদের জনক চার্লস ডারউইনকে।

তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি জীবন ও মহাবিশ্বের রহস্যময় অনেক প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে ধর্ম ও বিজ্ঞান বিষয়ে একসঙ্গে কাজ করা গুরুত্বপূর্ণ।’

উল্লেখ্য, ১৯৩৭ সালে পরমাণুবিজ্ঞানী আর্নেস্ট রাদারফোর্ড ও ১৯৪০ সালে জোসেফ জন থম্পসনকেও ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে সমাহিত করা হয়। এ ছাড়া যুক্তরাজ্যের আট প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি অনেক রাজা ও রানি সেখানে সমাধিস্থ হয়েছেন।