‘জঙ্গি হুমকি’র কারণে সীমান্তে মিয়ানমারের সেনা মোতায়েন

0
55

‘জঙ্গি হুমকি’র কারণে তাম্ব্রু সীমান্তে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কাছে সেনা উপস্থিতি বাড়িয়েছে মিয়ানমার, এমনটাই দাবি করছে মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র জো হতেয়। খবর এএফপির

২ মার্চ, শুক্রবার এই দাবি করেন মিয়ানমারের এই মুখপাত্র।

জো হতেয় বলেন, ‘আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভ্যাশন আর্মির (আরসা) জঙ্গিদের সম্পর্কে গোয়েন্দা তথ্য পাওয়ার পর সীমান্তে মিয়ানমার নতুন করে সেনা উপস্থিতি বাড়িয়েছে। বাংলাদেশকে প্রতিহত করা আমাদের উদ্দেশ্য নয়।’

এর আগে গত ১ মার্চ, বৃহস্পতিবার সীমান্তে ভারী অস্ত্র, গোলাবারুদ নি‌য়ে স্বাভা‌বি‌কের থে‌কে অ‌তি‌রিক্ত সেনা মোতা‌য়েনের প্রেক্ষিতে দেশটির রাষ্ট্রদূত লিউইন উকে তলব করে প্রতিবাদ জানিয়েছিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এ ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছিলেন, ‘মিয়ানমার সীমান্তে আমাদের বিজিবি সতর্ক আছে। সেখানে সে দেশের সৈন্যদের অস্ত্রের মহড়া নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। এ বিষয়ে আমরা সে দেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করেছি। তারা জানিয়েছে, সে দেশের কিছু রোহিঙ্গা নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থান করছে, তাই তাদের এই মহড়া। এটি তাদের একান্ত নিজস্ব বিষয়। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সেখানে অরাজকতা সৃষ্টির কোনো সুযোগ নেই।’

এ কারণে মিয়ানমারকে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছিল বি‌জি‌বি। ২ মার্চ, শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ঘুমধুমের বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ক্যাম্পে পতাকা বৈঠকটি শুরু হয়। বিজিবি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। এর আগে শুক্রবার সকালে কক্সবাজার বিজিবির সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আব্দুল খালেক, পতাকা বৈঠকের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ির তাম্ব্রু সীমা‌ন্তে স্বাভা‌বি‌কের থে‌কে অ‌তি‌রিক্ত সেনা মোতা‌য়েন, ভারী অস্ত্র, গোলাবারুদ নি‌য়ে মিয়ানমারের অবস্থানের প্রে‌ক্ষি‌তে সীমা‌ন্তে বি‌জি‌বি শক্ত ও সতর্ক অবস্থানে ছিল। নাইক্ষ্যংছড়ির তামব্রু সীমা‌ন্তে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পো‌স্টের মাঝামা‌ঝি এলাকায় মিয়ানমার সীমা‌ন্তের দেড়শ’ গজ ভিত‌রে মিয়ানমার সেনা সমা‌বেশ ক‌রে‌। এ জন্য সতর্ক অবস্থানে থেকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে বিজিবি।

এর আগে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের অবৈধ অভিবাসী হিসেবে চিহ্নিত করে এবং তাদের মৌলিক অধিকার কেড়ে নেয়, যেখানে তারা প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে বসবাস করে আসছিল।

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী